হুইজিং (সাঁসাঁ করে নিঃশ্বাস ফেলা)

প্রকাশিত ২৮ আগস্ট, ২০১৮ | আপডেট: ৭ আগস্ট, ২০২০

হুইজিং হল শ্বাস নেওয়া বা ফেলার সময়ে শুনতে পাওয়া একটা উচ্চ শিস-ধবনি বা হুইসল বাজানো শব্দ। বাতাস যখন ফুসফুসের সংকীর্ণ ব্রেদিং টিউব এর মধ্যদিয়ে চলাচল করে তখনি এটি ঘটে। যে লক্ষণ একজন ব্যক্তির শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা ঘটিয়ে থাকতে পারে, হুইজিং হচ্ছে সেই লক্ষণ। নিঃশ্বাসের সঙ্গে বাতাস বের করার সময়ে হুইজিং এর শব্দ সবচেয়ে সুস্পষ্ট বা প্রতীয়মান। তবে শ্বাস গ্রহণের সময়ে সম্ভবত এটা শুনা যেতে পারে।

বেশির ভাগ সময় হুইজিং ব্রোংকিয়াল টিউব (ছোট ছোট ব্রেদিং টিউব) থেকে আসে। কিন্তু এটি বৃহত্তর শ্বাসনালীর ব্লকেড এর কারণে বা ভোকাল কর্ড প্রবলেম বিশিষ্ট্য ব্যক্তিদের মধ্যে হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

হুইজিং বা সাঁসাঁ করে নিঃশ্বাস ফেলার কারণসমুহ নিচের যে কোনো একটি অন্তর্ভুক্ত করতে পারে

১। ব্রোংকাইটিস।

২। ব্রোংকিওলাইটিস।

৩। ব্রোংকিইকটাসিস।

৪। অ্যাজমা।

৫। নিঃশ্বাসের সঙ্গে ফুসফুসে একটা বহিরাগত বস্তু নেওয়া।

৬। এমফাইসেমা (সিওপিডি), বিশেষ করে যখন একটা রেস্পিরেটরী ইনফেকশন উপস্থিত থাকে।

৭। গ্যাস্ট্রোইসোফ্যাজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজীজ।

৮। হার্ট ফেইলুর (কার্ডিয়্যাক অ্যাজমা)।

৯। কীটপতঙ্গের হুল যা অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন সৃষ্টি করে।

১০। নিউমোনিয়া।

১১। ভাইরাল ইনফেকশন, বিশেষ করে ২ বছরের চেয়ে কম বয়সী শিশু।

১২। ওষধসমূহ (বিশেষ করে অ্যাসপিরিন)।

১৩। ধূমপান।

কখন হাসপাতালে থাকা আবশ্যক হতে পারে

১। বিশেষ করে শ্বাসক্রিয়া কঠিন হলে।

২। IV রুটে ওষধ দেওয়ার দরকার হলে।

৩। সাপ্লিমেন্টাল অক্সিজেন দরকার হলে।

৪। ব্যক্তিকে মেডিক্যাল পার্সোন্যাল দ্বারা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে দেখার প্রয়োজন হলে।

কি কি সম্ভাব্য টেস্ট রোগীর লাগতে পারে

১। Chest x-ray

২। Lung function tests

শুরুতেই চিকিৎসক বা নার্স ফিজিক্যাল ইগজ্যাম করে দেখবেন ও আপনার মেডিক্যাল হিস্ট্রী ও লক্ষণদি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করবেন।

কখন মেডিক্যাল প্রোফেশনাল এর সাথে যোগাযোগ করতে হবে

১। হুইজিং প্রথমবারের জন্য ঘটলে।

২। শ্বাসকষ্ট, বিভ্রান্তি বা মানসিক অবস্থার পরিবর্তন।

৩। ওষধের অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন দ্বারা ঘটলে।

৪। কামড়ের প্রতি অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন দ্বারা ঘটলে।

হোম কেয়ার

নির্দেশনা অনুযায়ী আপনার সব ওষধ গ্রহণ করুন। 

হীটেড এয়ার কিছু লক্ষণাদি লাঘবে সম্ভবত সাহায্য করতে পারে। একটা ভেপোরাইজার ব্যবহার করে এটা করা যায়।

এই লেখাটি শুধুমাত্র তথ্যের জন্য, কিন্তু চিকিৎসা সংক্রান্ত অবস্থা নিরুপন বা চিকিসা গ্রহণের জন্য ব্যবহার করা উচিত নয়।

মোঃ ফারুক হোসাইন