একুরিয়ামে গোল্ডফিশ চাষ করার পদ্ধতি

প্রকাশিত ১৪ মার্চ, ২০১৮ | আপডেট: ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

গোল্ডফিশ মাছগুলো দেখতে অনেক সুন্দর। গোল্ড ফিশ একটি অতি পরিচিত বিদেশী বাহারি মাছ। এই মাছ বাড়িতে একুরিয়ামের মধ্যে চাষ করলে দেখতে অনেক সুন্দর লাগে। বিশেষ করে এর গায়ের সোনালী ও লাল রঙ দেখতে দারুন। বর্তমানে আমাদের দেশে সবচেয়ে বেশী লালন-পালনকৃত বাহারি মাছের মধ্যে গোল্ড ফিশ অন্যতম। একটা গোল্ডফিশ পূর্ণজীবন প্রায় ১০ বছরের বেশীও হতে দেখা যায়। আসুন জেনে নেই কিভাবে এই মাছ একুরিয়ামে চাষ করতে হবে। 

গোল্ডফিশ চাষে কি ধরণের পাত্র বা একুরিয়াম বাছাই করবেন

ক) গোল্ডফিশ চাষ করার জন্য আপনাকে উপযুক্ত পাত্র নির্বাচন করতে হবে। 

খ) বাড়িতে গোল্ডফিশ চাষের জন্য আপনি বড় সাইজের অথবা মাঝারি সাইজের একুরিয়াম নিতে পারেন। 

গোল্ডফিশ  চাষ করার সঠিক সময়/মৌসুম

ক) আপনি ইচ্ছা করলে সারা বছরই গোল্ড ফিশ চাষ করতে পারেন। 

খ) তবে একুরিয়ামে গোল্ডফিশ চাষ করার ক্ষেত্রে আপনাকে উপযুক্ত সময় নির্বাচন করতে হবে। 

কিভাবে গোল্ডফিশের পোনা ছাড়তে হবে ও সঠিক নিয়মে যত্ন নিতে হবে

ক) গোল্ড ফিশ চাষ করার জন্য আপনাকে প্রথমে পোনা সংগ্রহ করতে হবে। এই ক্ষেত্রে আপনি আপনার নিকটস্থ যেকোন নার্সারী হতে পোনা আহরন করতে পারেন। 

খ) এছাড়াও গোল্ড ফিশের সাধারণত ৩-৫ দিনের মধ্যেই ডিম ফুটে পোনা বের হয়ে আসে। তাপমাত্রা অনুযায়ী সময় কম বেশী লাগে। 

গ) পোনা ছাড়ার পর আপনাকে সঠিক নিয়মে গোল্ডফিশের যত্ন নিতে হবে। 

সঠিক নিয়মে গোল্ডফিশের চাষাবাদ পদ্ধতি/কৌশল

ক) গোল্ড ফিশ মাছ আমাদের দেশের তাপমাত্রায় সাধারণত মার্চ মাস থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত অনায়াসে ডিম দেয়। গোল্ড ফিশের বৃদ্ধির জন্য ৭০ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রার প্রয়োজন। 

খ) দেড় থেকে দুই বছর বয়সে গোল্ড ফিশ প্রজননের জন্য উপযুক্ত হয়ে থাকে। এছাড়াও গোল্ড ফিশ মাছের নিয়মিত যত্ন নিতে হবে। 

গ) ডিম পাড়ার পরে পুরুষ মাছ ও স্ত্রী মাছকে অবশ্যই আলাদা করতে হবে। তা না হলে এরা মাছের ডিম খেয়ে ফেলে। 

ঘ) তবে ছোট মাছের ক্ষেত্রে স্ত্রী ও পুরুষ মাছ সনাক্ত করা খুব কঠিন কিন্তু বয়স্ক মাছ থেকে সহজেই স্ত্রী,পুরুষ আলাদা করা সম্ভব। পেটে ডিম আসলে স্ত্রী মাছের পেট অনেক নরম ও ফোলা থাকে।

গোল্ডফিশের খাবারের পরিমাণ ও সঠিক নিয়মে খাবার প্রয়োগ

ক) গোল্ড ফিশ চাষে আপনাকে নিয়মিত উপযুক্ত খাবার প্রয়োগ করতে হবে। উপযুক্ত সুযোগ বা পরিবেশে খাদ্য ব্যবহার না হলে তা গোল্ড ফিশের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। 

খ) মাছ স্বাভাবিকভাবে প্রাকৃতিক খাদ্য হিসেবে শেওলা খেয়ে থাকে। প্রাকৃতিক পরিবেশে প্রধানত প্ল্যাঙ্কটন, বেন্থোস, উদ্ভিদাংশ এবং ডেট্রিটাস খেয়ে থাকে। 

গ) এছাড়াও চাল, ডাল, গম, ভূট্টা ইত্যাদি দানাদার উদ্ভিজ্জ খাদ্য গোল্ড ফিশকে দেয়া যায়। গোল্ড ফিশের পোনা ফুটে ৭২ ঘণ্টা পার হলে খাবার দিতে হয়।

গোল্ডফিশের রোগ বালাই ও তাঁর প্রতিকার 

ক) গোল্ড ফিশ চাষ করার জন্য আপনাকে এদের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। 

খ) মাঝেমধ্যে গোল্ডফিশের বিভিন্ন রকমের রোগবালাই দেখা দেয় তাই সার্বক্ষণিক খেয়াল রাখতে হবে। এবং মাছের যত্ন নিতে হবে।

কিভাবে গোল্ডফিশের মাছে  যত্ন নিবেন

ক) গোল্ড ফিশ চাষ করার ক্ষেত্রে একুরিয়ামের অনেক যত্ন নিতে হবে। যে এ্যাকুয়ারিয়ামে গোল্ড ফিশের চাষ করা হবে তাতে ফিল্টার না দেওয়াই ভালো। 

খ) কারণ তাতে অনেক সমস্যা হয়। যেমন ফিল্টার পানিকে নিচ থেকে উপড়ে উঠায়। 

গ) এ ক্ষেত্রে ডিম ফুটে পোনা হলে পানির টানে পোনাও পাথরের নিচে চলে যায়। মাছকে প্রজননের আগে ও পরে নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার দিতে হবে।

সংকলনে- মোঃ শাহিন মিয়া