দুর্ঘটনা ও প্রাথমিক চিকিৎসা

প্রকাশিত ৩১ মে, ২০১৮ | আপডেট: ১২ আগস্ট, ২০২০

প্রতি বছরেই নানান জায়গায় বিভিন্ন দুর্ঘটায় মানুষকে মরতে বা আহত হতে দেখা যায়। জরুরী চিকিৎসা সেবা পৌঁছার পুর্বে যদি প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া যায় তবে বহু মৃত্যুর কবল থেকে অধিকাংশ ক্ষেত্রে রক্ষা পাওয়া যায়। কেউ যদি আহত হয়ে থাকে তবে আমাদের উচিত প্রথমে তাকে পরীক্ষা করে দেখা কোথায় জখম পেয়েছে। যদি সম্ভব হয় আহত ব্যক্তিকে নিরাপদ জায়গায় নিয়ে আসা ও যত দ্রুত সম্ভব তার চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

কেউ যদি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে কিন্তু তার শ্বাসক্রিয়া চলছে ও অন্য কোন সমস্যা নেই তবে আহত ব্যক্তিকে আরোগ্য স্থানে নিয়ে এসে পর্যবেক্ষণে রাখুন, আর দেখুন তিনি স্বাভাবিকভাবে নিঃশ্বাস নিচ্ছেন কিনা। যদি দেখেন দুর্ঘটনার পর ব্যক্তি স্বাভাবিকভাবে শ্বাসপ্রশ্বাস নিচ্ছেন না তবে একটা অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করুণ ও প্রয়োজনে CPR শুরু করুন।

সবচেয়ে কমন কিছু জখম যার জন্যে কিছু গুরুত্বর চিকিৎসার দরকার হতে পারে, যেমন শরীর পুড়ে যাওয়া, বিষক্রিয়া, স্ট্রোক, শক, ইলেকট্রিক শক, হার্ট অ্যাটাক, ফ্র্যাকচার, রক্তপাত ইত্যাদি।

দুর্ঘটনা যে কারো, যে কোন সময় যে কোন স্থানে ঘটতে পারে। অনেক সময় সমস্যা নিজ বাসাতেও ঘটতে পারে।

বাসায় কিছু হেলথ ইকুইপমেন্ট রাখা প্রয়োজন হয়ে পড়ে

১। ফার্স্ট এইড ম্যানুয়াল।

২। থার্মোমিটার।

৩। স্ফিগমোমেনোমিটার।

৪। ইন্সট্যান্ট আইস ব্যাগ।

৫। হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

৬। টৌয়ীজাজ।

৭। লেটেক্স বা নন লেটেক্স গ্লোভস।

৮। স্টেরাইল কটন বল।

৯। স্টেরাইল কটন টিপড সোয়ব।

১০। ওষধের স্পেসিফিক ডৌস দেওয়ার জন্য সিরিঞ্জ, মেডিসিন কাপ বা মেডিসিন স্পুন।

এই লেখাটি শুধুমাত্র তথ্যের জন্য, কিন্তু চিকিৎসা সংক্রান্ত অবস্থা নিরুপন বা চিকিসা গ্রহণের জন্য ব্যবহার করা উচিত নয়।

মোঃ ফারুক হোসাইন