ভ্রমণ করে আসুন রাজা সীতারাম রায়ের বাড়ি

প্রকাশিত ২৪ মার্চ, ২০১৮ | আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

রাজা সীতারাম রায় ছিলেন একজন স্বাধীন রাজা। তিনি মুঘল রাজত্বের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেন এবং বাংলায় একটি স্বল্পস্থায়ী হিন্দু অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করেন।

রাজা উপাধি লাভের পর সীতারাম রাজার মতোই রাজ্য বিস্তার করতে থাকেন এবং সেনাবল বৃদ্ধি করে তিনি পার্শ্ববর্তী জমিদারদের ভূ-সম্পত্তি দখল করেন। তিনি নবাব সরকারের রাজস্ব প্রদান বন্ধ করে স্বাধীন, সার্বভৌম রাজার মতোই জমিদারিতে প্রত্যাবর্তন করেন নিজস্ব শাসনব্যবস্থা।

সীতারাম রায়ের বাড়ির অবস্থান

মাগুরা জেলা শহর হতে ১০ মাইল পূর্বে মধুমতি নদীর তটে অবস্থিত মহম্মদপুর উপজেলা। এই মহম্মদপুর উপজেলার রাজাবাড়ী নামক স্থানে রাজা সীতারাম রায়ের বাড়িটি অবস্থিত।

সীতারাম রায়ের বাড়ি যে কারণে বিখ্যাত

সাহিত্য সম্রাট বঙ্গিম চন্দ্রের ‘‘সীতারাম´´ নামক উপন্যাসের সহিত শিক্ষিত বাঙ্গালি মাত্রেই পরিচিত। মহম্মদপুরে রাজা সীতারাম রায়ের রাজধানী ছিল। মোঘলদের বিরুদ্ধে রাজা সীতারামের বীরত্বের ইতিহাস আজও মানুষের মুখে মুখে ফেরে। রাজা সীতারাম ছিলেন মুর্শিদাবাদের নবাব সরকারের একজন আমলা। তিনি আমলা থেকে জমিদারি এবং পরে স্বীয় প্রতিভা বলে রাজা উপাধি লাভ করেন।

সীতারাম রায়ের বাড়ির দর্শনীয় দিক

মহম্মদপুরে সীতারামের বহু কীর্তি আজও বিদ্যমান আছে। তার মধ্যে প্রাচীন দুর্গের ধ্বংসাবশেষ, রাম সাগর, সুখ সাগর ও কৃষ্ণসাগর নামে দীঘি, দোল মঞ্চ ও রাজভবনের ধ্বংসাবশেষ সিংহদরজা, মালখানা, তোষাখানা, দশভুজা মন্দির, লক্ষ্মী নারায়ণের অষ্টকোন মন্দির, কৃষ্ণজীর মন্দির প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। সীতারামের দুইটি প্রধান বড় কামানের নাম ছিল কালে খাঁ ও ঝুম ঝুম খাঁ।   

সীতারাম রায়ের বাড়ি যেভাবে যাবেন

মাগুরা সদর হতে ২৮ কি.মি. দূরে মহম্মদপুর উপজেলায় রাজাবাড়ী নামক স্থানে রাজা সীতারাম রায়ের বাড়িটি অবস্থিত। মহম্মদপুর বাস স্ট্যান্ড হতে আধা কিলোমিটার উত্তরে পাকা রাস্তার পার্শ্বে রাজবাড়ির অবস্থান। রিক্সা, ভ্যান অথবা পায়ে হেঁটে যাতায়াত করা যায়। 

সীতারাম রায়ের বাড়ির রেস্টুরেন্ট ও আবাসিক ব্যবস্থা

এখানে বেড়ানোর ক্ষেত্রে আপনি মাগুরা শহরেই থাকতে পারেন। এখানে আছে আধুনিক মানের হোটেল ও রেস্টুরেন্টসমূহ।

মোঃ শাহিন মিয়া