টন্সিলের প্রদাহ, অসুবিধা ও প্রতিরোধের উপায় জেনে নিন

প্রকাশিত ২৬ মার্চ, ২০১৮ | আপডেট: ৩১ অক্টোবর, ২০২০

টনসিলাইটিস মানে হচ্ছে টন্সিলের প্রদাহ যা এক ধরনের রোগ বা ব্যাধির জন্য দায়ী। আসুন জেনে নেই টন্সিল কী? টন্সিল হচ্ছে গলার ভেতর টিস্যুর দুই ডিম্বাকৃতির প্যাড, যার কাজ হচ্ছে শরীরে কোন জীবাণু নাক কিংবা মুখ দিয়ে প্রবেশ করলে সেই জীবাণু দিয়ে দেহের সংক্রমণ সৃষ্টি হওয়ার আগে তাদের বিরুদ্ধে কাজ করতে সাহায্য করা। সাধারনত টন্সিল তার কাজ ভালোভাবেই করে থাকে। কিন্তু কখনও কখনও ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া টন্সিলের মধ্যে ঢোকে এবং তা সংক্রমিত করে। যখনি এটি ঘটে তখনই কারো টনসিল হয়েছে বলে ধরে নেওয়া হয়। 

টনসিলাইটিস বোঝার উপায়

কারো টনসিল হলে সাধারনত গলায় ক্ষত হয়, কোন কিছু খাওয়া, পান করা বা গেলা কঠিন হয়ে পড়ে।শরীরে জ্বর থাকতেও পারে। 

এখানে আরো কিছু লক্ষণ আছে যার সাহায্যে বোঝা যায় ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া টনসিলকে সংক্রমিত করছে-

১। জ্বর- ১০৩ F পর্যন্ত বা তার উপর

২। ঘাড় বা গলার গ্রন্থিগুলো ফুলে যাওয়া

৩। লাল টন্সিল

৪। টন্সিলের উপর হলুদ বা সাদা আবরন

৫। গলায় ব্যথা ও ক্ষত

৬। ঘাড়ের লিম্ফনোড বড় হয়ে যাওয়া

৭। নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ

৮। চুলকানো বা খনখনে কন্ঠ

৯। বিশেষ করে ছোট শিশুদের মধ্যে পেট ব্যথা

১০। গলা শক্ত হওয়া

১১। মাথা ব্যথা

টনসিলাইটিসের কারন

ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া উভয় টনসিল ঘটাতে পারে। ব্যাকটেরিয়ার মধ্যে streptococci টন্সিলের প্রদাহ ঘটিয়ে থাকে। যদি কারও এ ধরনের সংক্রমন হয়ে থাকে তবে তাকে antibiotic ঔষধ নিতে হবে যা streptococcus bacteria কে ধ্বংস করবে। 

চিকিৎসা

ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতীত antibiotic কোনক্রমেই ব্যবহার করা যাবে না। একজন ভালো চিকিৎসকের সাথে আলোচনা করে জেনে নিন আপনার টনসিলাইটিসের সমস্যা আছে কিনা। যদি নিশ্চিত করা যায় তবে ডাক্তার আপনাকে antibiotic প্রেসক্রাইব করবেন।

বাসায় যত্ন ও প্রতিরোধের উপায়

পানিশুণ্যতা দূর করতে ও গলা আর্দ্র রাখতে পর্যাপ্ত তরল পান করতে হবে, শিশুদের ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত ঘুমের প্রয়োজন। উষ্ণ তরল যেমন ক্যাফিনমুক্ত চা বা মধু দিয়ে গরম পানি গলদাহ প্রশমিত করতে পারে। একটি লবনের পানির কুলকুচা গলদাহ প্রশমিত করতে সাহায্য করতে পারে (237 milliliters গরম পানি+1 চা-চামচ লবণ)। cool-air humidifier বায়ু আর্দ্র রাখতে ব্যবহার করা যায়। বাড়ি সিগারেটের ধোঁয়া থেকে মুক্ত রাখুন ও পরিষ্কার পণ্য দূরে রাখুন এসব গলা জ্বালাতন করতে পারে। প্রদাহ লাঘব করে এমন খাদ্য খেতে পারেন

এই লেখাটি শুধুমাত্র তথ্যের জন্য, কিন্তু চিকিৎসা সংক্রান্ত অবস্থা নিরুপন বা চিকিসা গ্রহণের জন্য ব্যবহার করা উচিত নয়।