ভিটামিনস ও মিনারালস বিষয়ে জেনে নিন

প্রকাশিত ২৫ মার্চ, ২০১৮ | আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

যথাযথভাবে কাজ করার জন্যে শরীরের প্রয়োজনীয় পরিমাণ ভিটামিন ও মিনারালের দরকার পড়ে। সুষম খাবার খেয়ে যে সকল পুষ্টিকর পদার্থ লোকের প্রয়োজন হয় তা অধিকাংশ লোকের জন্য আবশ্যক।

খাবারের পাশাপাশি দোকানে ভিটামিনস ও মিনারালস এর সাপ্লিমেন্ট পাওয়া যায়। যদি কেউ ভিটামিনস ও মিনারালস সাপ্লিমেন্ট নেয়, তবে তাকে সতর্ক থাকতে হবে। কারণ দীর্ঘ সময় ধরে অধিক পরিমান সাপ্লিমেন্ট নেওয়া স্বাস্থ্যের জন্য বিরূপ পারে। শুধু সে সকল লোকের সাপ্লিমেন্ট নেওয়া দরকার যাদেরকে চিকিৎসক পরামর্শ দেবেন।

কেউ যদি লবণ গ্রহণ কমিয়ে আনতে চেষ্টা করতে থাকে, তবে তাকে হয়তো ভিটামিনস ও মিনারালস সাপ্লিমেন্ট বর্জন করতে হতে পারে। কারন সাপ্লিমেন্ট ইফার্ভেসেন্ট বা ফিজি ট্যাবলেট হিসেবে পাওয়া যায়। প্রতি ট্যাবলেটে ১ গ্রাম পর্যন্ত লবন থাকতে পারে।

দুই ধরনের ভিটামিন

ফ্যাট সলুবল ভিটামিনস- এটি মুলত চর্বিযুক্ত খাদ্যে ও প্রাণী থেকে উৎপন্ন কিছু থেকে পাওয়া যায়। ঠিকভাবে কাজ করার জন্য শরীরের প্রতিদিন এই ভিটামিনের প্রয়োজন পড়ে। একই সময়ে প্রত্যহ ফ্যাট সলুবল ভিটামিনযুক্ত খাবার খাওয়া দরকার পড়ে না, কারন পরবর্তীতে শরীরে ব্যবহারের জন্য এই ভিটামিন লিভারে ও ফ্যাটি টিস্যুতে জমা থাকে। যখন কারো ফ্যাট সলুবল ভিটামিনের প্রয়োজন পড়ে, শরীরে জমে থাকা এই ভিটামিন তা যোগান দেয়। ফ্যাট সলুবল ভিটামিনের মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ, ডি, ই, কে।

ওয়াটার সলুবল ভিটামিনস- এই ভিটামিন শরীরে জমা থাকে না। তাই যে কেউ এই ভিটামিন ঘন ঘন নিতে পারে। শরীরের প্রয়োজনের চেয়ে অধিক পরিমানে এই ভিটামিন নিলে অতিরিক্ত ভিটামিন শরীর মূত্রত্যাগের সময় বের করে দেয়। ওয়াটার সলুবল ভিটামিন শরীরে জমা না থাকার কারণে শরীরের কোন ক্ষতি করতে পারে না।

এর মানে এই নয় যে অতি পরিমাণের ভিটামিন একেবারে ক্ষতি করে না।

ওয়াটার সলুবল ভিটামিনের মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স ও ফলিক এসিড।

মিনারালস প্রধানত তিনটি কারনে গুরুত্বপূর্ণ

দৃঢ় হাড় ও দাঁত গঠন করতে

কোষের ভিতরে এবং বাইরে শরীরের তরল পদার্থের নিয়ন্ত্রন করতে
খাবার প্রত্যহ খাওয়া হয় তা শক্তিতে রূপান্তর করতে

প্রয়োজনীয় মিনারালস হচ্ছে ক্যালসিয়াম ও আয়রন। যদিও আর অনেক ধরনের মিনারালস আছে যেগুলো স্বাস্থ্যকর খাবারের একটি গুরুত্বপুর্ণ অংশ।